Loading...
You are here:  Home  >  ইউকে  >  Current Article

ব্রিটেনে ২০১৭ সালে বিশ্বের সবচেয়ে নিরাপদ কয়েন চালু হবে

সময়২৪: ব্রিটেনে ১ পাউন্ডের নতুন কয়েন চালু হচ্ছে। ‘বিশ্বে সবচেয়ে নিরাপদ কয়েন’ হিসেবে ১ পাউন্ড মূল্যমানের এই কয়েনটির অনুমোদন দিয়েছে রয়াল মিন্ট অর্থাৎ রাজকীয়  টাকশাল। আগামী ২০১৭ সাল থেকে এই কয়েন চালু হবে।
প্রচলিত ৩০ বছরের পুরোনো কয়েনের  জালের ব্যাপারে অরক্ষিত অবস্থার বিষয়ে উৎকন্ঠার মধ্যে এই সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। ব্রিটেনে বর্তমানে সাড়ে ৪ কোটি জাল মুদ্রা চালু রয়েছে। নতুন কয়েনটি হবে অনেকটা  আগের ৩ পেনির মতো। ১২ দিক বিশিষ্ট ৩ পেনির মুদ্রাটি ১৯৩৭ থেকে ১৯৭১ সাল পর্যন্ত চালু  ছিলো। কয়েনের ‘টেইলস্’ দিকে কী ছবি দেয়া হবে তা নির্ধারণে একটি প্রতিযোগীতা অনুষ্ঠিত হবে।
চ্যান্সেলর জর্জ অসবর্ন বলেন, ১ কয়েনের মুদ্রাটি প্রচলিত সবচেয়ে পুরোনোর মুদ্রার একটি এবং জালিয়াতির ক্ষেত্রে এটা ক্রমশ: অরক্ষিত হয়ে পড়েছে। প্রতি ৩০ পাউন্ড কয়েনের মধ্যে একটি জাল এবং এ জন্য প্রতি বছর ব্যবসায়ী ও করদাতাদের লাখ লাখ পাউন্ড গচ্ছা দিতে হচ্ছে।
তিনি বলেন, আমি ঘোষণা করতে পারি যে  আমরা  একটি নতুন অত্যন্ত নিরাপদ ১ পাউন্ডের কয়েন চালু করতে যাচ্ছি। এ জন্য ৩ বছর সময় প্রয়োজন হবে। আমাদের রাণীর সম্মানে কয়েনটিতে তার আকৃতি থাকবে-যেমনটি ছিলো পুরোনো ৩ পেনির কয়েনে। একটি অধিকতর স্থিতিশীল অর্থনীতির জন্য একটি অধিকতর স্থিতিশীল মুদ্রা প্রয়োজন। রাজকীয় টাকশাল বলেছে, এ ধরনের উদ্যোগ যুক্তরাজ্যের মুদ্রার প্রতি জনগণের আস্থা বৃদ্ধি করবে এবং ব্যাংক ও অন্যান্য ব্যবসায়ের খরচ কমাবে।
উল্লেখ্য, বর্তমান ১ পাউন্ডের কয়েন ১৯৮৩ সালে ১ পাউন্ডের কাগজী মুদ্রার অংশ হিসেবে চালু হয়। ৫ বছর পর তা প্রত্যাহার করা হয়। বাজারে প্রচলিত ১৫০ কোটি জাল মুদ্রার মধ্যে প্রতি বছর ২০ লাখ মুদ্রা অপসারণ করা হয়। নতুন কয়েনটি দুই রংয়ে অত্যাধুনিক প্রযুক্তিতে তৈরী করা হবে।
জনৈক ট্রেজারি মুখপাত্র বলেন, বিদ্যমান ১ পাউন্ডের কয়েনের অবসর নেয়ার এখন উপযুক্ত সময়। প্রযুক্তির উন্নতি ১ পাউন্ডের মতো উচ্চ মূল্যের কয়েনগুলোকে জালিয়াতির কাছে অরক্ষিত করে তুলেছে। আমাদের মুদ্রার সততা রক্ষার জন্য অপরাধীদের চেয়ে কয়েক কদম এগিয়ে থাকতে হবে।  দক্ষিণ ওয়েলস্ এর ল্যানট্রিসন্ট ভিত্তিক রয়াল মিন্ট অর্থাৎ রাজকীয় টাকশাল-এর প্রধান নির্বাহী অ্যাডাম লরেন্স বলেন এই প্রক্রিয়া আগামীতে কয়েন তৈরী পন্থা বদলে দিতে পারে। আমাদের লক্ষ্য হচ্ছে  নতুন কয়েন সনাক্তকরণ ও তৈরী, যা জালিয়াতির সুযোগ হ্রাস করবে এবং যুক্তরাজ্যের মুদ্রা সম্পর্কে জনগণের আস্থা বৃদ্ধি করবে।

    Print       Email

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

You may use these HTML tags and attributes: <a href="" title=""> <abbr title=""> <acronym title=""> <b> <blockquote cite=""> <cite> <code> <del datetime=""> <em> <i> <q cite=""> <strike> <strong>

You might also like...

HRW

শ্রমিক নেতা আমিনুল হত্যাকারীদের খুঁজে বের করার আহ্বান

Read More →