Loading...
You are here:  Home  >  এক্সক্লুসিভ  >  Current Article

১৪৯ সোনার বারসহ ৪ পুলিশ গ্রেফতার

রাজধানীর রামপুরা থানার পুলিশ অভিযান চালিয়ে যে সোনার বারগুলো উদ্ধার করেছিল তার বড় একটি অংশই লোপাট করেছিল তারাই পরস্পর যোগসাজশের ভিত্তিতে। পরে লোপাটের সোনার ভাগবাটোয়ারা নিয়ে বনিবনা না হওয়ার কারনে ঘটনা ফাঁস হয়ে যায় । লেগে যায় তোলপাড় ।শুরু হয় নানামুখী তৎপরতা । এরই অংশ হিসেবে  ৩ পুলিশ সদস্যসহ ৪ জনকে গ্রেফতার করেছে মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)। এ সময় তাদের কাছ থেকে ১৪৯টি সোনার বার উদ্ধার করা হয়েছে। সোমবার রাতে নারায়ণগঞ্জ, গাজীপুর ও বগুড়ায় অভিযান পরিচালনা করে তাদের গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতাররা হলেন- রামপুরা থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মঞ্জুরুল আলম, দুই কনস্টেবল ওয়াহিদ ও আকাশ। অপর আরেকজন হলেন পুলিশের সোর্স রানা। এ ছাড়া জিজ্ঞাসাবাদের জন্য রানার স্ত্রী এবং গাড়ি চালককে আটক করা হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার বেলা ১২টায় ডিএমপি মিডিয়া সেন্টারে এক সাংবাদিক সম্মেলনে এসব কথা জানান মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের যুগ্ম-কমিশনার মনিরুল ইসলাম।
গোয়েন্দা পুলিশ জানায়, গত ১৩ মার্চ বনশ্রী এলাকায় পুলিশের একটি গাড়ি দেখে সামনে থাকা একটি মাইক্রোবাস দ্রুত পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে। বনশ্রী এলাকার একটি গলিতে প্রবেশ করে মাইক্রোবাস থেকে নেমে দুইজন দৌড়ে পালাতে গেলে তাদেরকে আটক করা হয়। এরা হলো সমীর ও মুহিন।
ঘটনার তিন দিন পর কর্তব্যরত পুলিশ রামপুরা থানায় ৭০টি সোনার বার উদ্ধার দেখিয়ে চোরাচালান মামলা দায়ের করে। আসামি করা হয় মাইক্রোবাস আরোহী সমীর ও মুহিনকে। তাদেরকে গ্রেফতার করে থানা হেফাজতে নেওয়ার পর তারা জানায় সোনার বার ৭০টি নয়, আরও বেশি ছিল। এরপর ডিএমপি কমিশনারের নির্দেশে মামলার তদন্তভার গ্রহণ করে গোয়েন্দা পুলিশ।
সোমবার রাতে গোয়েন্দা পুলিশের পৃথক তিনটি দল একযোগে নারায়ণগঞ্জ, গাজীপুর ও বগুড়ায় অভিযান পারিচালনা করে ৪ জনকে ১৪৯টি সোনার বারসহ গ্রেফতার করে।
ঘটনা সম্পর্কে গোয়েন্দা পুলিশ জানায়, ১৩ মার্চ বনশ্রী এলাকা থেকে মাইক্রোবাসে সোনার বার নিয়ে শাখারীবাজারে যাওয়ার কথা ছিল। কিন্তু মাইক্রেবাবাসটি পিছনে পুলিশের গাড়ি দেখে তাড়াহুড়ো শুরু করলে পুলিশ এগিয়ে যায়। তখন আরোহীরা মাইক্রোবাস নিয়ে বনশ্রীর একটি গলির ভেতরে প্রবেশ করে পালাতে গেলে ২ জনকে আটক করা হয়।
ডিএমপির সহকারী কমিশনার (মিডিয়া) আবু ইউসূফ বলেন, ‘রামপুরা থানায় দায়ের করা মামলায় ৭০টি সোনার বার উদ্ধার হিসেবে দেখানো হয়। এদিকে গোয়েন্দা পুলিশ অভিযান চালিয়ে ৪ জনকে গ্রেফতার এবং ১৪৯টি সোনার বার উদ্ধার করেছে। গ্রেফতার করা ৩ পুলিশ সদস্যকে বরখাস্ত করা হয়েছে।

    Print       Email

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

You may use these HTML tags and attributes: <a href="" title=""> <abbr title=""> <acronym title=""> <b> <blockquote cite=""> <cite> <code> <del datetime=""> <em> <i> <q cite=""> <strike> <strong>

You might also like...

Dankan

‘নির্বাচন ও বিরোধী দল অস্বাভাবিক’

Read More →